বোকা বানানোর এসএমএস | Funny Sms

1) *হিমালয়*থেকে নয়.ওই দুর *আকাশ*থেকেও নয়.*সাত সাগর*13 নদীর*ওপার থেকে ও নয়.এই *হৃদয়ের*গভীর থেকে বলছি,ভিশন ঠান্ডালাগতাছে!

2) তোমার জন্যে হতে পারি ভ্যানের ওই ঝালমুড়ি ওয়ালা। তোমার জন্য হতে পারি রাস্তার পাশের আঁচারওয়ালা। ফ্রীতে দিবো ঝালমুড়ি আর ফ্রীতে দিবো আঁচার। ভালো যদি না বাসো তবে দিবো আছাড়।

 

3) এইযে ভাইয়েরা শুনছেন, আপনারা সবাই গরু. ছাগল. ভেড়া. মহিষ. গাধা. শুকোর. বানর. কুকুর. @ @ @ @ @পালন করিবেন ।

 

4) সবাই রাতে দেয়, কেও সময় পেলে দিনেও দেয়, টানা ১ ঘন্টা আবার ২ ঘন্টা ও দেয়, কেও কেও সারা রাত দেয়, কেও আবার সকালেও দেয়! দেওয়ার সময় পুরা গরম হইয়া যায় । …… . . . এভাবেই সবাই মোবাইল চার্জ দেয়! হে হে হে ।*

 

5) অনেক মেয়ে *মুলা* দিয়ে করে, আবার অনেক মেয়ে *গাজর* দিয়ে ও করে, আবার অনেক মেয়ে *শষা* দিয়ে ও করে। আবার সব কিছু একসাথে দিয়ে ও করে। কি করে জানো ?? আরে সালাদ তৈরী করে।

 

6) দু হাত বাড়িয়ে আকাশ পানে চাও, নিজেকে পাখি মনে হবে। জোছনা রাতে চাঁদের পানে চাও, নিজেকে পরি মনে হবে। মাটির সবুজ ঘাসের পানে চাও, নিজেকে ছাগল মনে হবে।

 

7) চাই না আমি *শাকিব খান* এর প্রিয়া, চাই না আমি নায়িকা *ঐশরিয়া* চাই আমি তোমার মত এক্সপার্ট *কাজের বুয়া*। কি হবেনা??

 

8) আমি আমার এক বন্ধুর বাসায় বেড়াতে গেলাম। রাতে ঘুমের ঘোরে দেখলাম আমাকে চুমু দিচ্ছে। আমি সহ্য করতে না পেরে উঠে মশা মেরে আবার ঘুমিয়ে পড়লাম। আপনারা কি ভেবেছিলেন??

 

9) সে আসলো, আমার উপর বসলো, আমাকে জড়িয়ে ধরলো, পরে কামর, চুমু দিল। তারপর নিজের প্রয়োজন মিটিয়ে চলে গেল। খারাপ চিন্তা ভাবনা বাদ দিয়ে ভালো চিন্তা ভাবনা কর। ঐটা একটা মশা ছিল।

 

10) রোগ হলে ডাক্তারের কাছে যাও। কারণ ডাক্তার কে খেয়ে বাঁচতে হবে। ঔষধ কেনো, কারণ দোকানদার কেও খেয়ে বাঁচতে হবে। কিন্তু তুমি ঔষধ খেওনা,, কারণ তোমাকেও বাঁচতে হবে।

 

11) যখন তোমার একা লাগবে, তুমি চারদিকে কিছুই দেখতে পাবে না, দুনিয়া টা ঝাপসা হয়ে আসবে। তখন তুমি আমার কাছে এসো। . . তোমাকে চোখের ডাক্তার দেখাবো।

 

12) ফুলের মাঝে ভ্রমর আসে, নদীর ওপর নৌকা ভাসে, শিশির নাচে সবুজ ঘাসে, রাতের মাঝে জোছনা হাসে। আর কিছু মেয়েদের ভালোবাসায় ফরমালিন আছে।

 

13) অদ্ভুত কিছু আবেগ, অজানা কিছু অনুভূতি। অসম্ভব কিছু ভালো লাগা, হয়তো বা কষ্টের ভয়, একাকীত্ব নিরবতা। এই নিয়ে আমাদের টয়লেটে বসে থাকা।

 

14) তুমি আসবে বলেই , আকাশ মেঘলা বৃষ্টি এখনো হয় নি তুমি আসবে বলেই , কৃষ্ণচূড়ার ফুলগুলো ঝড়ে যায়নি। তুমি আসবে বলেই , অন্ধ কানাই বসে আছে গান গায়নি তুমি আসবে বলেই , চৌরাস্তার পুলিশটা ঘুষ খায়নি।

 

15) বেশিরভাগ মানুষ রাতে করে, কেউ কেউ আবার দিনেও করে। কেউ টানা ত্রিশ মিনিট করে, কেউ কেউ আবার এক ঘন্টা ও করে। কেউ সারারাত করে, এভাবেই তো মানুষ মোবাইল চার্জ করে।

 

16) এইযে ভাইয়েরা শুনছেন, কুকুরের বাচ্চারা, শুয়োরের বাচ্চারা, বানরের বাচ্চারা, গাধার বাচ্চারা, বিড়ালের বাচ্চারা, শেয়ালের বাচ্চারা যদি কামরায়, তবে কোন মলম লাগাবেন জানেন?

 

17) (হ্যাঁ/না) দিয়ে নিচের শূন্যস্থান পুরণ কর। 1/— আমি মানুষ না। 2/— আমি ফাজিল। 3/— আমার মতো পাগল আর নাই। 4/— আমি বেকুব। 5/—আমি গাধা।

 

18) যেখানে ভালোলাগা, সেখানেই ভালোবাসা। যেখানে ভালোবাসা, সেখানেই প্রেম। যেখানে প্রেম, সেখানেই ব্যাথা। আর যেখানে ব্যাথা, সেখানেই টাইগার বাম মলম।

 

19) কি দিন আইছে রে, বাতাস বইতেছে, পাখি গান গাইতেছে, গরু ঘাস খাইতেছে, জিনিয়াসরা এস.এম.এস করতাছে, আর আবালটায় এস.এম.এস পড়তাছে।

 

20) ওরে মন কথা শোন, যাবি চলে বান্দরবন, বানরের মত সবাই ঝুলবি নাকি বল? ওরে বাঁচাও আমায়, একটা বানর আমার পিছু নিয়েছে। সেই বানরতা এস এম এস পড়তেছে।

 

21) এক দিন তোমার জীবনে একটি সুন্দর মেয়ে আসবে। সে তোমাকে ভালোবাসবে KISS করবে। আবার তোমাকে জড়িয় ধরে বলবে ,,,,,,,,,,, আব্বু আমাকে একটা চকলেট কিনে দাও।

 

22) জল পড়ে পাতা নড়ে।মহা গাঁধা এসএমএস পড়ে। ওরে গাঁধা রাগিস না। বোকার মতো হাসিস না। এই এসএমএস পড়বি যত, বুদ্ধি হবে গাঁধার মতো।

 

23) এখন আমার হাতে এক বোতল বিষ। এত জ্বালা আমার সহ্য হয় না। জানি এটা পাপ। এত যন্ত্রণা আর ভালো লাগে না। তাই আমি যাচ্ছি ………ইদুর মারতে।

 

24) চোখ বুজে দেখো স্বপ্ন দেখো কি না, পা বাড়িয়ে দেখো পথ খুজে পাও কি না, মন বাড়িয়ে দেখো কেউ ভালোবাসে কি না, হাত বাড়িয়ে দেখো …….কেউ পয়সা দেয় কিনা।

 

25) একটি ছাগলের চারটি বাচ্চা হয়েছে। একটি বাচ্ছা তার মাকে জিগাসা করল, মা আমার বাবা কোথায়? ছাগলটা বল্ল চুপ কর তোর বাবা এখন SMS পরছে।

 

26) হিজরা: বাবা আমার বিয়ে হবে না? বাবা: হবে চিন্তা করিসনা,তোর বিয়ের জন্য যাকে ঠিক করেছি সে এখন Sms পড়ছে, Sms পড়ে লাইক না দিলে মনে করবি সে তোর স্বামী।

 

27) আলু পটল তরকারি,মেয়েদের মন সরকারি । পেঁয়াজ রসুন আদা,মেয়েরা সব গাঁদা । হারি পাতিল কলস,মেয়েরা সব অলস ! লাল নীল কালো, ছেলে সবাই খুব ভালো ॥

 

28) এক বছর পর দেখলাম, তারপর ধরলাম, ভালো লাগল একটু টিপলাম, নরম লাগল তারপর একটু চুষে দিলাম মজা লাগল। তাইতো বলি বছরের প্রথম পাকা আমের স্বাদ-ই আলাদা

 

29) এই চলোনা ওই দিকে নির্জনে যাই Plz না বলোনা। আরে এত করে বলছি তাও যাবে না ? ……ওই বেটা না গেলে বল অন্য রিকশা ডাকি।

 

30) আপনে একটা গরু, না একটা ছাগল, না একটা ভেড়া, না না না বাজার থেকে একটা দেশী মুগরী কিনে আমাকে দাওয়াত দিয়ে খাওয়াবেন।

 

31) নারী তুমি করিওনা রুপের বড়াই, সবাইতো জানে তোমার প্রিয় বনধু রান্না ঘরের কড়াই। যতই দেখাও তুমি রুপের ঝর্ণা, করতে হবে তোমাকে তরকারি রান্না।

 

32) তুমি আমার অচিন পাখি তোমার নাম টিয়া, সুন্দর একটা বাদর পেলে তোমার দিতাম বিয়া।

 

33) আম গাছে আম ধরে,নারিকেল গাছে ডাব, ছেলেদেরকে মিসকল মারা মেয়েদের সভাব । গাছের বল লতাপাতা মাছের বল পানি এ যুগের মেয়েরা চায় পঁয়সাওয়ালা স্বামী ।।

 

34) এ দুটি চোখে স্বপ্ন ছিল মনে ছিল আশা। গরুর ঘরে থাকবে তুমি মারবে অনেক মশা। ভাবনা ছিল খাবে তুমি রাস্তা ঘাটে মার, কেন তুমি চলে গেলে গরু নিয়ে আমার !

 

35) তুমি বির, তুমি দুর্জয়, তুমি বাঙ্গালি, তুমি সাহসী, তুমার বুকে অনেক জোর, তুমি আমাদের গ্রাম এর মুরগী চোর!

 

36) আমাদের দেশে হবে সেইমেয়ে কবে, মিসকল না দিয়ে,ডাইরেক্ট কল দিবে …… পাঁচজনকে মন না দিয়ে একজনকে দিবে,,

 

37) তোমায় দেখেছি ফাগুনেরো সাজে, তোমায় দেখেছি স্বপ্ন মাঝে। পুকুর পাড়ে, ঝিলের ধারে, দেখেছি তোমার ২টা লম্বা ঠ্যাং, তুমি যে আমার প্রিয়কোলা ব্যাং।

 

38) আপনার ব্যাপারে ৬টি বিষয়জেনে নিন। »» তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি তুমি আমি তুমি তুমি তুমি: : ১। আপনি এত অলস যে সব তুমি পড়েন নি ২। আমি ওখানে একটা আমি লিখেছি তা আপনি খেয়াল করেন নি। ৩।আপনি এখন সব তুমি গুলো ভালো ভাবে পরে নিছেন।